TURNER IT SOLUTION

শনিবার ২০ জানুয়ারী ২০১৮ || সময়- ১০:০৬ pm

Warning: include(usbd/config/connect2.php) [function.include]: failed to open stream: No such file or directory in /home/onn24/public_html/details.php on line 82

Warning: include(usbd/config/connect2.php) [function.include]: failed to open stream: No such file or directory in /home/onn24/public_html/details.php on line 82

Warning: include() [function.include]: Failed opening 'usbd/config/connect2.php' for inclusion (include_path='.:/usr/lib/php:/usr/local/lib/php') in /home/onn24/public_html/details.php on line 82

Warning: mysql_num_rows() expects parameter 1 to be resource, boolean given in /home/onn24/public_html/details.php on line 84

জাতীয় অনলাইন গণমাধ্যম নীতিমালার চূড়ান্ত খসড়া

  • জাতীয় অনলাইন গণমাধ্যম নীতিমালার চূড়ান্ত খসড়া

    জাতীয় অনলাইন গণমাধ্যম নীতিমালার চূড়ান্ত খসড়া

(সূত্র তথ্য অধিদপ্তর তথ্য বিবরণী) বর্তমান সভ্যতাকে বলা হয় ইন্টারনেট সভ্যতা। ইন্টারনেট মানেই অনলাইন। এই সভ্যতায় আমাদের যাত্রাকে আমরা “ডিজিটাল বাংলাদেশ” বলে চিহ্নিত করেছি। আমাদের স্বপ্ন, আমরা ২০২১ সালের মাঝে বঙ্গবন্ধুর একুশ শতকের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তুলবো। আমরা এই সময়ে হতে চাই একটি সমৃদ্ধ-উন্নত মধ্যম আয়ের দেশ, যাতে থাকবেনা দারিদ্র, থাকবেনা অশিক্ষা বা বৈষ্যৈ। আমরা সেই স্বপ্নকে পুরণ করতে চাই ডিজিটাল প্রযুক্তিকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে। সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন আমরা এরই মাঝে আমাদের চারপাশের সবকিছুকে ডিজিটাল রূপান্তরের দিকে নিয়ে যাচ্ছি। সেই লক্ষ্য অর্জন এবং সার্বিক ভাবে সারা দুনিয়ার মতো জাতিগতভাবে আমাদের ইন্টারনেট নির্ভরতাও প্রশ্নাতীত। ২০১৩ সালের জুন মাসের হিসাব অনুসারে দুনিয়ার ২৪০ কোটি ৫৫লাখ ১৮ হাজার ৩৭৬ জন ইন্টারনেট ল্টবহার করতো, যার শতকরা ৪৪ ভাগই এশিয়ার। বাংলাদেশের অবস্থা দুনিয়ার থেকে বিচ্ছিন্ন কিছু নয়। এদেশে ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখা ছিলো ৩ কোটি ৬১ লাখ ২৮ হাজার ৫৯২। প্রযুক্তিগত দিকে থেকেও ইন্টারনেট এখন আমাদের জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপর্ণ অংশ। এখন মানুষের জীবনযাপন, তথ্য আদান-প্রদান, শিক্ষা, স্বাস্থ,পরিচালনা, ব্যবসা-বাণিজ, যোগাযোগ ও পারস্পরিক সম্পর্কের সবচেয়ে বড় মাধ্যম ইন্টারনেট। লেখা,চিত্র ও শব্দ ও ইন্টারএাকটিভিটি সহযোগে ইন্টারনেটে তথ্য ও উপাত্তকে এমন ভাবে উপস্থাপন করা সম্ভব যা আর কোন মাধ্যমেই তেমনটা সম্ভব নয়। এটি একদিকে হতে পারে খবরের কাগজ, ব্যক্তিগত ডাইরী বা সামাজিক যোগাযোগ নেটওয়ার্ক। অন্যদিকে ইন্টারএাকটিভিটিসহ রেডিও, টিভি সম্প্রচারও এই প্রযুক্তিতে সম্ভব। এখনই বিভিন্ন ধরনের নিউজ পোর্টাল, নিউজ ব্লগ, আইপি টিভি, ইন্টারনেট রেডিও ইত্যাদি নানা ধরনের অনলাইন গণমাধ্যমের আবির্ভাব ঘটছে। দেশের বিদ্যমান কাগজ ও সম্প্রচারনির্ভর জাতীয় গণমাধ্যম গুলোও এখন ইন্টারনেটকে নির্ভর করছে এবং তাদের তথ্য-উপাত্ত ও সম্প্রচার ইন্টারনেটেও প্রকাশ করছে। ফলে ইতিমধ্যে বিরাজমান সকল গণ মাধ্যমের চাইতেও রুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠেছে অনলাইন গণ মাধ্যম। বস্তুত দেশে অনলাইন গণ মাধ্যমের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। এটি দিনে দিনে আরও বাড়তেই থাকবে। সেই প্রেক্ষিতটির প্রতি লক্ষ্য রেখে এখনই একথা বলা যায় যে, অনলাইনে প্রকাশিত গণমাধ্যমের বিষয়টিকে আর অবহেলা করা যায়না।

বিদ্যমান অবস্থায় এইসব গণ মাধ্যম একদিকে কোন স্বীকৃতি বা সুযোগসুবিধা পায়না, অন্যদিকে গণমাধ্যমের জাতীয় মান রক্ষা করাও সম্ভব হচ্ছে না। এটি এখন যেমন খুশি তেমন সাজো অবস্থায় চলছে। কোন আইন কানুন নিয়ম নীতি, নিবন্ধন ইত্যাদি এখানে বিদ্যমান নেই। এমন অবস্থা কোন মহলেরই কাম্য হতে পারেনা।

এজন্যেই জাতীয় অনলাইন গণ মাধ্যমের স্বীকৃতি, মান বজায় ও নীতিনৈতিকতা গড়ে তোলার জন একটি জাতীয় অনলাইন গণমাধ্যম নীতিমালা প্রণীত হওয়া বাঞ্ছণীয়। সরকার বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করে একটি খসড়া প্রস্তুত করে প্রকাশ করেছিলো গত ২২ সেপ্টেম্বর ২০১২ তারিখে । প্রকাশিত সেই খসড়াটি ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১২ তারিখে তথ্য সচিবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বাতিল ঘোষণা করা হয় এবং ১৩ সদস্য বিশিষ্টি একটি কমিটি গঠন করা হয়। সেই কমিটির সভায় খসড়া প্রণয়নের জন্য ৬ সদস্য বিশিষ্ট একটি উপ-কমিটি গঠন করা হয়। সেই উপ-কমিটি আলাপ আলোচনার ভিত্তিতে একটি খসড়া প্রস্তুত করে।

১.১নীতিমালার নাম:
এই নীতিমালার নাম জাতীয় অনলাইন গণমাধ্যম নীতিমালা ২০১৪।
১.২ নীতিমালার উদ্দেশ ও লক্ষ্য
.১ অনলাইন গণমাধ্যম পরিচালনার ব্যবস্থা অক্ষুন্ন রেখে দেশের গণমাধ্যম ব্যবস্থাকে শক্তিশালী ও গতিশীল করা;
১.২.২ অনলাইন গণ মাধ্যমের স্বাধীনতার ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক নীতি ও মান অনুস্মরণ, গণতন্ত্রের বিকাশ, বহুত্ববাদ ও বৈচিত্রতা
সঠিকতা, নিরপেক্ষতা ও গণমুখীনতা বজায় রাখা এবং তথ্যের অবাধ প্রাপ্তি নিশ্চিত করা;
১.২.৩ জনগণের মৌলিক অধিকার ও ব্যক্তি স্বাধীনতা সমুন্নত রেখে গণমাধ্যম সমুহের অধিকতর স্বাধীনতা এবং দায়বদ্ধতা
নিশ্চিতকরণ;
১.২.৪ অনলাইন গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠার উদ্যাগ গ্রহণ এবং এর মানোন্নয়নে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা প্রদান;
১.২.৫ সরকারি ও বেসরকারি অনলাইন গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠায় উন্মুক্ত ও সুষম প্রতিযোগিতা সৃষ্টি করা;
১.২.৬ সরকারি- বেসরকারি অংশীদারিত্বের মাধ্যমে অনলাইন গণমাধ্যমকে আরো গতিশীল ও দক্ষ করে গড়ে তোলা;
১.২.৭ অনলাইন গণ মাধ্যমের সহায়তায় বাংলাদেশের উন্নয়ন কর্মকান্ড বিশেষ করে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, ব্যবসা-বাণিজ,
কর্মসংস্থান, রপ্তানী বৃদ্ধি, সরকারি সেবা, শিক্ষা, স্বাস্থ, কৃষি, নারীর ক্ষমতায়ন, দারিদ্র বিমোচন ইত্যাদি কর্মসচিতে জনগণের
অংশগ্রহণ নিশ্চিতকরণের লক্ষে তাদের সচেতনতা বৃদ্ধি করা;
১.২.৮ সমাজের সকল ক্ষেত্রে সকল প্রকারের বৈষ্যৈ নিরসন করে সমতার নীতি প্রতিষ্ঠায় অনলাইন গণমাধ্যমের ভমিকা নিশ্চিত
করা।
১.৩ নীতিমালার প্রধান দিকসমুহ :
১.৩.১ অনলাইন গণমাধ্যম সেবা প্রদানকারীদের লাইসেন্স প্রদান, পর্যবেক্ষণ (Monitoring)) এবং মান বজায় রাখার লক্ষে প্রাতিষ্ঠানিক
কাঠামো গড়ে তোলা;
১.৩.২ লাইসেন্স প্রদানের মাধ্যমে সকল অনলাইন গণমাধ্যমকে একটি সমন্বিত ব্যবস্থার আওতায় এনে এ সেক্টরে সুশাসন প্রতিষ্ঠা
করা;
১.৩.৩ জনস্বার্থ, মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস, আদর্শ ও চেতনা, সামাজিক মূলবোধ এবং রাষ্ট্রীয় নীতির সাথে সামঞ্জ্য রেখে যাতে
অনলাইন গণমাধ্যম সেবাদানকারী কর্তৃক তথ্য ও উপাত্ত প্রকাশ বা সম্প্রচার করা হয় তা নিশ্চিতকরণ;
১.৩.৪ বাংলাদেশের নারী ও দরিদ্র জনগোষ্ঠীর ক্ষমতায়নের ক্ষেত্রে অনলাইন গণমাধ্যমের ভমিকা নিশ্চিতকরণ;
১.৩.৫ অনলাইন গণ মাধ্যমের সহায়তায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানে বর্ণিত ব্যক্তির মৌলিক অধিকার ও সম্মান সমুন্নত
রাখার বিষয়টি নিশ্চিতকরণ;
১.৩.৬ সমাজে নৈতিক অবক্ষয় রোধ ও সামাজিক শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠাকরণ;
১.৩.৭ জনসচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে দেশের আর্থ- সামাজিক উন্নয়ন ও দারিদ্র বিমোচনে অনলাইন গণমাধ্যমের অবদান নিশ্চিতকরণ;
১.৩.৮ স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে সমাজের সর্বত্র সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও মানবাধিকার সমুন্নত রাখা;
১.৩.৯ অশ্লীলতা রোধ এবং সামাজিক মূ্ল্যবোধের পরিপন্থী কোন বিজ্ঞাপন বা তথ্য- উপাত্ত প্রকাশ বা সম্প্রচার না করার মাধ্যমে
সামাজিক দায়বদ্ধতা নিশ্চিতকরণ, দেশীয় সাহিত, কৃষ্টি/ সংস্কৃতি উন্নয়নে সহায়তাকরণ।
১.৩.১০ সাম্প্রদায়িকতা ও জঙ্গীবাদের বিস্তার রোধ ও প্রতিরোধে সহায়তা করা।
১.৪ নীতিমালার কৌশলসমহ
১.৪.১ এ নীতিমালা প্রণয়ন এবং বাস্তবায়নের জন্য সকল অংশীজন (Stakeholder) দের পরামর্শ গ্রহণ;
১.৪.২ এ নীতিমালা বাস্তবায়নের জন প্রয়োজনীয় আইন ও বিধি প্রণয়ন এবং প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামো গঠন করা;
১.৪.৩ অনলাইন গণমাধ্যম কমিশনের মাধ্যমে গণ- মাধ্যমের কর্মকান্ড- সমন্বয় করা।
১.৫: সংজ্ঞা ও পরিধি
এই নীতিমালার আলোকে অনলাইন গণমাধ্যম বলতে বাংলা, ইংরেজি বা অন্য কোন ভাষায় জনগণের জন্য ইন্টারনেট মাধ্যমে
ভিডিও, অডিও, টেক্সট বা মাল্টিমিডিয়ার অন্য কোন রূপে প্রকাশিত তথ্য-উপাত্ত প্রকাশ বা সম্প্রচারকারী সংস্থা বা প্রতিষ্ঠানকে
বোঝাবে। এই ধরনের সকল প্রতিষ্ঠান ও সংস্থা এই নীতিমালার পরিধিতে থাকবেন। সরকার ব্লগ বা অন্য ধরনের কাঠামোতে
পরিচালিত অনলাইন প্রকাশনা, প্রচার বা সম্প্রচার প্রতিষ্ঠানকে এই গণমাধ্যমের আওতায় আনতে পারবেন।
দ্বিতীয় অধ্যায় :
অনলাইন গণমাধ্যম লাইন্সেন্স
২.১ লাইসেন্স প্রদান
২.১.১ সকল অনলাইন গণ মাধ্যমকে সরকারের নিকট হতে লাইসেন্স গ্রহণ করতে হবে; সরকার লাইসেন্স ফিস বাবদ “নাম মাত্র ফিস”
ধার্য করবে।
২.১.২ সরকার একটি লাইসেন্সিং কর্তৃপক্ষের সহায়তায় নির্ধারিত পদ্ধতিতে নির্দিষ্ট নিয়মে অনলাইন গণ মাধ্যমকে লাইসেন্স প্রদান
করবে। বিদ্যমান অনলাইন গণমাধ্যমসমুহ শর্ত পরণ সাপেক্ষে লাইসেন্স পাবে।
২.১.৩ সরকার অংশীজনদের (Stakeholder) সাথে আলোচনা করে লাইসেন্স প্রদানের ক্ষেত্রে একটি স্বচ্ছ, প্রতিযোগিতামুলক
উন্মুক্ত স্বতন্ত্র আইন/ নীতিমালা/ বিধিমালা প্রণয়ন করবে। এতে লাইসেন্স প্রদান পদ্ধতি, লাইসেন্স প্রদানের যো্গ্যতা ও অযোগ্যতা,
লাইসেন্স বাতিল ও অগ্রায়নের বিধান বর্ণিত থাকবে;
২.১.৪ এ সম্পর্কিত আইন/ নীতিমালা/ বিধিমালা প্রণীত না হওয়া পর্যন্ত সরকার তথা তথ্য মন্ত্রণালয় এ সকল বিষয়ে প্রয়োজনীয়
সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে।
২.১.৫ লাইসেন্স প্রাপ্ত সকল অনলাইন গণ মাধ্যম সরকারের কাছে স্বীকৃত প্রতিষ্ঠান হিসেবে গণ্য হবে এবং শর্ত পরণ সাপেক্ষে
সরকারি বিজ্ঞাপনসহ সরকারের সকল সুযোগ সুবিধা পাবে।
তৃতীয় অধ্যায়
অনলাইনে তথ্য-উপাত্ত প্রচার, প্রকাশ ও সম্প্রচার সংক্রান্ত নীতিমালা
৩.১ মহান মুক্তিযুদ্ধ এবং তার ইতিহাস
৩.১.১ তথ্যের অবাধগ্যেতা, শিক্ষার প্রসার, উন্নয়নমলক কর্মকান্ডে সকলকে উদ্ধুদ্ধকরণ, নির্মল আনন্দদান ও দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করা
হবে অনলাইন গণমাধ্যমের তথ্য- উপাত্ত প্রকাশ ও সম্প্রচারের মূল লক্ষ্য। এই লক্ষ্যেরভিত্তিতে বিভিন্ন অনুষ্ঠান ও সংবাদ প্রচার,
প্রকাশ ও সম্প্রচারের ক্ষেত্রে এই নীতিমালা অনুসরণ করতে হবে;
৩.১.২ মহান মুক্তিযুদ্ধের আদর্শ ও চেতনা, রাষ্ট্র পরিচালনার মূলনীতি এবং বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় আদর্শ ও নীতিমালা সমুন্নত রাখতে
হবে;
৩.১.৩ স্বাধীনতা সংগ্রামের প্রকৃত ইতিহাসসহ সর্বজন স্বীকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের ভূমিকা গৌরবান্বিত করতে হবে।
৩.২ সংবাদ ও তথ্যমুলক বিষয়াদি :
৩.২.১ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত কোন তথ্য- উপাত্ত কোন প্রকার অসঙ্গতিপর্ণ বিভ্রান্তিমুলক অসত্য
তথ্য বা উপাত্ত দেয়া যাবেনা। সকল প্রকারের তথ্য-উপাত্তে উভয় পক্ষের যুক্তিসমুহ যথাযথ ভাবে উপস্থাপনের সুযোগ থাকতে হবে;
৩.২.২ সরকার কর্তৃক অনুমোদিত নিম্নবর্ণিত জাতীয়রুত্বপর্ণ অনুষ্ঠানসমহের তথ্য-উপাত্ত বাধ্যতামুলকভাবে প্রচার, প্রকাশ বা
সম্প্রচার করতে হবে। যথাঃ- জরুরী আবহাওয়া বার্তা, স্বাস্থবার্তা, গুরুত্বপর্ণ ঘোষণা, সরকার কর্তৃক জারীকৃত প্রেস নোট, সরকার
কর্তৃক সময় সময় অনুমোদিত জাতীয় গুরুত্বপর্ণ অনুষ্ঠানসমুহ ইতাদি।
৩.৩ ভাষা, সংস্কৃতি এবং ধর্মীয় অনুভুতি
৩.৩.১ দেশীয় সংস্কৃতির অগ্রগতির জন্য বাংলাদেশের আবহমানকালের নিজস্ব সংস্কৃতি, ঐতিহ্য ও ভাবধারার প্রতিফলন, বাংলাদেশী
সংস্কৃতির সঙ্গে জনসাধারণের নিবিড় যোগসুত্র স্থাপন এবং বিভিন্ন অঞ্চলের সাংস্কৃতিক ধারাকে দেশপ্রেমের আদর্শে অনুপ্রাণিত করে
দেশীয় সংস্কৃতির সুষ্ঠু প্রতিফলন করতে হবে;
৩.৩.২ ক্ষুদ্র নৃ- গোষ্ঠীসমহের সংস্কৃতির অগ্রগতির জন্য তাঁদের নিজস্ব সংস্কৃতি, ঐতিহ্য ও ভাবধারার সুষ্ঠু প্রতিফলন করতে হবে।
৩.৩.৩ সংস্কৃতির সমৃদ্ধির জন দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের শিল্প ও শিল্পীদের অনুসন্ধান ও আবিষ্কার করে তাদেরকে অনুপ্রাণিত করতে
হবে এবং জনসমক্ষে তুলে ধরতে হবে;
৩.৩.৪ রাষ্ট্র ভাষাকে যোগ্য মর্যাদায় সুপ্রতিষ্ঠিত করার লক্ষে অনুষ্ঠান এবং এই উদ্দেশে সঠিক বাংলা বানান ও উচ্চারণের একটি
আদর্শ মান স্থাপনের চেষ্টা করতে হবে। তথ্য পাঠ, প্রচার, প্রকাশ ও সম্প্রচারের ক্ষেত্রে কোনক্রমেই প্রমিত বানান বা উচ্চারণের মান
শিথিল করা যাবে না; প্রয়োজনে আঞ্চলিক ভাষা ব্যবহার করা যাবে, তবে কোনক্রমেই কোন অঞ্চলের প্রতি কৌতুক বা পরিহাস
করার জন্য আঞ্চলিক ভাষা ব্যবহার করা যাবেনা;
৩.৩.৫ সকল ধর্মীয় অনুভতির প্রতি পর্ণ শ্রদ্ধা প্রদর্শন করতে হবে;
৩.৩.৬ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত সকল তথ্য উপাত্তে রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, ধর্মীয় তথা সমাজ
জীবনের সর্বক্ষেত্রে পুরুষের পাশাপাশি নারীদের সমমর্যাদা ও সক্রিয় অংশগ্রহণের লক্ষে অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নারী সমাজ আমাদের
জাতিকে প্রত্যয়দীপ্ত রাখার ব্যাপারে সত্যিকারের অর্থপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে এর স্পষ্ট প্রতিফলন থাকতে হবে।
৩.৪ উন্নয়নমলক কর্মকান্ড :
৩.৪.১ উন্নয়নমলক কর্মকা- বিশেষ করে স্বেচ্ছাভিত্তিক কাজের উদ্বুদ্ধকরণ এবং এই লক্ষ্য বাস্তবায়নে তথ্য উপাত্ত প্রচার, প্রকাশ বা
সম্প্রচারের ক্ষেত্রে যথাসম্ভব সচিত্র প্রতিবেদন উপস্থাপন করতে হবে। একই সাথে শ্রমের মর্যাদা ও কায়িক পরিশ্রমের প্রয়োজনীয়তা
সম্পর্কে জনসাধারণকে সচেতন করার প্রচেষ্টা চালাতে হবে এবং এজন্য কোন পেশা বা বৃত্তি যে অমর্যাদাকর নয় সেটি তথ্য-উপাত্ত
প্রচার, প্রকাশ ও সম্প্রচারের মাধ্যমে তা ফুটিয়ে তুলতে হবে;
৩.৪.২ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত সকল তথ্য-উপাত্তে কৃষি ও শিল্প ক্ষেত্রে উৎপাদন বৃদ্ধি এবং দেশকে
স্বনির্ভর করে গড়ে তোলার আন্দোলনে জনসাধারণকে অনুপ্রাণিত করতে হবে। বিশেষ করে কৃষক, শ্রমিক ও অনান্য কর্মীদেরকে
গুরুত্বপর্ণ ভমিকা ও দায়িত্ব পালনে উদ্ধুদ্ধ করতে হবে;
৩.৪.৩ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত সকল তথ্য-উপাত্তে জনসংখা বৃদ্ধির ভয়াবহতা সম্পর্কে জনগণকে
সচেতন রাখতে ও এ সম্পর্কে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণে তাদেরকে আগ্রহী করে তুলতে হবে। শালীনতা, রুচি ও দেশীয় কৃষ্টির প্রতি
লক্ষ্য রেখে জনসংখা নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম সম্পর্কে তথ্য-উপাত্ত প্রদান করতে হবে;
৩.৪.৪ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত সকল তথ্য-উপাত্তে জনসাধারণকে দেশের শিল্পের উন্নয়নের ও
দেশের প্রযুক্তি উদ্ভাবনে উদ্বুদ্ধ করে তুলতে হবে;
৩.৪.৫ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত সকল তথ্য-উপাত্তে যুব সম্প্রদায়ের সৃজনশীল চিন্তাধারা ও শক্তিকে
কর্মক্ষেত্রে নিয়োগের পথনির্দেশনা দিতে হবে এবং তাদের সমস্যা সমাধানে ফলপ্রসু ইঙ্গিত প্রদান করতে হবে;
৩.৪.৬ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত সকল তথ্য-উপাত্তে উন্নয়ন, সামাজিক কুসংস্কার
থেকে মুক্তি এবং সমাজ বিরোধী কার্যকলাপ অবদমনের দায়িত্ব পালন করার লক্ষে সকল প্রকার দুর্নীতি দমন ও সমাধানের সুস্পষ্ট
ইঙ্গিত থাকতে হবে;
৩.৪.৭ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত সকল তথ্য-উপাত্তে জাতীয় সম্পদ রক্ষণাবেক্ষণের জন সংশ্লিষ্ট সকল
কর্মচারী এবং জনসাধারণকে দায়িত্বশীল হওয়ার জন্য সচেতন করে তুলতে হবে।
৩.৫ তথ্য উপাত্ত প্রচার, প্রকাশ ও সম্প্রচার বিষয়ক সতর্কতা :
৩.৫.১ অনলাইন গণমাধ্যমে শিশু বা নারীর প্রতি সহিংসতা, অসমমুলক আচরণ বা হয়রানীমুলক কর্মকান্ডকে উদ্ধুদ্ধ করে এমন
অনুষ্ঠান প্রচার, প্রকাশ বা সম্প্রচার করা যাবে না;
৩.৫.২ অনলাইন গণমাধ্যমে শিশুদের মনস্তাত্ত্বিক, মানবিক এবং নৈতিক গঠনকে নেতিবাচকভাবে প্রভাবিত করে এমন ধরণের অশ্লীল,
তথ্যগতভাবে ভ্রান্ত বা ভাষাগতভাবে অশোভন কিংবা সহিংসতামুলক অনুষ্ঠান প্রচার, প্রকাশ বা সম্প্রচার করা যাবে না;
৩.৫.৩ অনলাইন গণমাধ্যমে কোন প্রকার অশোভন উক্তি/ আচরণ করা যাবে না এবং অপরাধীদের কার্যকলাপের কৌশল প্রদর্শন যা
অপরাধ সংগঠনের ক্ষেত্রে নতুন পদ্ধতি প্রবর্তনে সহায়ক হতে পারে এমন তথ্য উপাত্ত বা দৃশাবলী প্রচার, প্রকাশ বা সম্প্রচার করা
যাবেনা;
৩.৫.৫ অনলাইন গণমাব্ধমে মানবিক অনুভতিতে আঘাত করে এমন তথ্য-উপাত্ত, হতাকান্ড-, নৃশংস হত্যাকান্ড, দুর্ঘটনায়
নিহত ও আত্মহতার মৃতদেহ এবং নির্যাতিত, ধর্ষিত এবং ব্যভিচার এর দ্বারা ক্ষতিগ্রস্থ কোন নারী বা শিশুর স্থির বা চলচ্চিত্র প্রদর্শন
করা যাবেনা;
৩.৫.৬ অনলাইন গণমাধ্যমে মানবিক অনুভতিতে আঘাত করে করে এমন কোন মানুষ বা প্রাণী নির্যাতনের এমন দৃশ্য তথ্য উপাত্ত বা
দৃশাবলী প্রচার, প্রকাশ বা সম্প্রচার করা যাবেনা;
৩.৫.৭ অনলাইন গণমাধ্যমে দেশী ও বিদেশী ছবি/ অনুষ্ঠানে অশ্লীল, হিংসাত্মক, সন্ত্রাসমুলক এবং দেশীয় সাংস্কৃতিক মূল্যবোধের
পরিপন্থী কোন তথ্য উপাত্ত বা দৃশাবলী প্রচার, প্রকাশ বা সম্প্রচার করা যাবেনা;
৩.৬ শিক্ষামুলক তথ্য উপাত্ত প্রচার, প্রকাশ ও সম্প্রচার:
৩.৬.১ অনলাইন গণমাধ্যমে জনস্বার্থে দেশের শিক্ষার মান উন্নয়নে এবং দরিদ্র ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর নিকট শিক্ষার আলো পৌঁছে
দেয়ার জন্য প্রয়োজনীয় শিক্ষামুলক তথ্য উপাত্ত প্রচার, প্রকাশ ও সম্প্রচার করতে হবে।
৩.৬.২ অনলাইন গণমাধ্যমে একটি জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গঠনে সহায়ক শিক্ষামুলক কর্মকান্ড বা তথ্য নির্ভর প্রতিবেদন প্রস্তুত বা প্রামাণ্য
তথ্য উপাত্ত প্রচার, প্রকাশ ও সম্প্রচার করতে হবে।
৩.৬.৩ অনলাইন গণমাধ্যমে দেশের প্রতিটি নিরক্ষর মানুষকে সাক্ষর হতে সচেতন ও আগ্রহী করার জন্যে তথ্য উপাত্ত প্রচার, প্রকাশ
ও সম্প্রচার করতে হবে।
৩.৭ বিবিধ
৩.৭.১ প্রতেকটি অনলাইন গণ মাব্ধমের সুনির্দিষ্ট charter of duties ও সম্পাদকীয় নীতিমালা থাকতে হবে;
৩.৭.২ সকল তথ উপাত্ত প্রচার, প্রকাশ ও সম্প্রচার করার ক্ষেত্রে The Censorship of FilmAct- 1963, ICT Act
বা সংশ্লিষ্ট আইনসমুহ ও তার অধীন প্রণীত বিধি বা নীতিমালার পরিপন্থী কোন তথ্য উপাত্ত প্রচার, প্রকাশ ও সম্প্রচার করা যাবেনা।
চতুর্থ অধ্যায়
বিজ্ঞাপন সংক্রান্ত নীতিমালা
৪.১ রাজনৈতিক এবং ধর্মীয় ব্যক্তি এবং বিজ্ঞাপন
৪.১.১ রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, বিদেশী কুটনীতিক এবং জাতীয় বীরদের অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত
পণ্যের বিজ্ঞাপনে অন্তর্ভুক্ত করা যাবে না। তবে গণসচেতনতা ও সমাজ সংস্কার ‍মুলক বিজ্ঞাপনে দেশের স্বনামধন্য নাগরিকদের
সম্মতিক্রমে বিজ্ঞাপনে অন্তর্ভূক্ত করা যাবে;
৪.১.২ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপনের ভাষা, দৃশ্য কিংবা নির্দেশনা কোন ধর্মীয় বা রাজনৈতিক
অনুভতির প্রতি পীড়াদায়ক হতে পারবে না। ধর্মীয় অনুভতিকে ল্টবহারের মাব্ধমে পŸের বাণিজিক উদ্দেশ হাসিলের লক্ষেম
র, গীর্জা ইতাদি স্থানের ধর্মীয় স্থিরচিত্র কিংবা চলমান চিত্র উপস্থাপন করা যাবে না। তবে বিজ্ঞাপনে ল্টবহৃত বিষয়বস্তুর
প্রয়োজনে ধর্মীয় অনুভূতিকে আহত না করে এ ধরণের প্রতিষ্ঠানের চিত্র প্রকাশ বা প্রদর্শন বিবেচনা করা যেতে পারে;
৪.১.৩ অনলাইন গণমাধ্যমে বন্ধু রাষ্ট্রসমুহের সাথে মতবিরোধ সৃষ্টি করতে পারে, এমন বিজ্ঞাপন প্রচার, প্রকাশ বা সম্প্রচার করা
যাবে না;
৪.১.৪ অনলাইন গণমাধ্যমে বিভিন্ন ধর্ম বা মতাবলম্বীদের মধ্যে বিদ্বেষ বা বিভেদ সৃষ্টি করতে পারে এমন বিজ্ঞাপন প্রচার প্রকাশ বা
সম্প্রচার করা যাবে না।
৪.২ পণ্য, পণ্যের মান এবং ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ
৪.২.১ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপনে বাংলাদেশ ষ্ট্যান্ডার্ড এন্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউট
(বিএসটিআই) এর তালিকাভুক্ত পণ্য সামগ্রীর বিজ্ঞাপনের ক্ষেত্রে বিএসটিআই মান নিয়ন্ত্রণ সনদপত্র উপস্থাপন করতে হবে। এছাড়া
অনান্য ক্ষেত্রে (যেখানে প্রযোজ) সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের মান নিয়ন্ত্রণ সনদপত্র উপস্থাপন করতে হবে;
৪.২.২ অনলাইন গণমাধ্যমের বিজ্ঞাপনে এমন কোন বর্ণনা বা দাবী প্রচার, প্রকাশ বা সম্প্রচার করা যাবে না যাতে জনগণ প্রত্যক্ষ বা
পরোক্ষভাবে প্রতারিত হতে পারে;
৪.২.৩ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপনে প্রতিযোগী পণ্যের তুলনা বা নিন্দা করে শ্রেষ্ঠত্ব দাবী করা
যাবে না। অন্য পণ্য সম্পর্কে বিজ্ঞাপনে অমর্যাদাকর কোন উক্তি করা যাবে না;
৪.২.৪ অনলাইন গণমাধ্যমে সংবাদের আকারে বিজ্ঞাপন প্রচার, প্রকাশ বা সম্প্রচার করা যাবে না। অনুষ্ঠান হতে বিজ্ঞাপন ভিন্নতর
হতে হবে। নাটক বা কোন অনুষ্ঠানের ভিতরে বিজ্ঞাপন বা বিজ্ঞাপনের বিষয়বস্তু প্রত্যক্ষ করা যাবে না;
৪.২.৫ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপনের অডিও মানসম্মত এবং শ্রুতিমধুর হতে হবে, অতি
কোলাহলপর্ণ ও কর্ণপীড়াদায়ক হবে না। বিজ্ঞাপনে নোংরা ও অশ্লীল শব্দ, উক্তি, সংলাপ, জিংগেল ও গালিগালাজ ইত্যাদি অন্তর্ভূক্ত
করা যাবে না;
৪.২.৬ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপনে কোন দেশী- বিদেশী গান বা গানের অংশ বা গানের সুর
সুরকার ও স্বত্বাধিকারীর অনাপত্তি নিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে;
৪.২.৭ অনলাইন গণমাধ্যমে কোন ধরণের নকল বিজ্ঞাপন প্রচার, প্রকাশ বা সম্প্রচার করা যাবে না;
৪.২.৮ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপনে ঔষধ জাতীয় পণ্য, হাসপাতাল, ক্লিনিক, ডায়াগনেষ্টিক
সেন্টার, স্বাস্থ্যকেন্দ্র ইতাদির ক্ষেত্রে স্বাস্থ মন্ত্রণালয় অথবা তার অধীনস্থ অধিদপ্তরের অনুমোদন/ ছাড়পত্র গ্রহণ করতে হবে;
৪.২.৯ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত পেশাগত পরামর্শ পরিহার করতে হবে। ঔষধপত্র, চিকিৎসা বিষয়ক
পণ্যের বিজ্ঞাপনে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক, দন্ত চিকিৎসকদের বিশেষজ্ঞ হিসেবে পরামর্শ প্রদান করা যাবে না এবং তাদের পরিচয় প্রচার,
প্রকাশ বা সম্প্রচার করা যাবে না। অনুরূপভাবে অনান্য ক্ষেত্রে বাণিজিকভাবে ব্যবহৃত পণ্যের বিজ্ঞাপনে পেশাগত পরামর্শ পরিহার
করতে হবে। তবে, সচেতনতামুলক বিজ্ঞাপন যেমন- এইডস, ডায়রিয়া, ডেংগু, যক্ষ্মা, মহামারি ইত্যাদি প্রতিরোধ, মাদক নিয়ন্ত্রণ,
এসিড নিক্ষেপ প্রভৃতি ক্ষেত্রে অনুমতিক্রমে পরিচয়সহ সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞের পেশাগত পরামর্শ দেখানো যেতে পারে;
৪.২.১০ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত দেশে উৎপাদিত তথা দেশীয় বা সেবার বিজ্ঞাপনে দেশীয় মডেল
ব্যবহার করতে হবে। তবে, দেশীয় পণ্য বা সেবার বিজ্ঞাপনে সীমিত সংখ্যক বিদেশী মডেল ব্যবহার করা যেতে পারে;
৪.২.১১ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিদেশে উৎপাদিত পণ্য বা সেবার বিজ্ঞাপনে বিদেশী মডেল ব্যবহার
করা যেতে পারে;
৪.২.১২ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপনে পরিবেশ বিনষ্টকারী বা বন্ধুসুলভ নয় এমন দৃশ্য দেখানো
যাবে না;
৪.২.১৩ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপনে রাষ্ট্রীয়ভাবে সংরক্ষিত গুরুত্বপর্ণ ভবন, স্থাপনা, কার্যালয়,
যেমন- জাতীয় সংসদ ভবন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, রাষ্ট্রপতির কার্যালয়, কোর্ট বা আদালত ও আদালতের কার্যক্রম, সেনানিবাস
এলাকা, শহীদ মিনার, জাতীয় স্মৃতিসৌধ ইত্যাদি প্রদর্শন করা যাবে না।
৪.৩ বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধ, ভাষা এবং সংস্কৃতি
৪.৩.১ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপনে মহান স্বাধীনতা দিবস, মুক্তিযুদ্ধ, গণঅভ্যুত্থান, ভাষা
আন্দোলন ইত্যাদি পর্যায়ের বিষয়গুলোর মর্যাদা ও সম্মান সমুন্নত রাখার লক্ষে এবিষয় গুলো প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে অন্তর্ভূক্ত করা
যাবে না;
৪.৩.২ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত কোন বিজ্ঞাপন শোভনীয়, সুন্দর, সুরুচিপর্ণ ও পরিমার্জিত কিনা এ
বিষয়ে কোনরূপ দ্বিধা/ সন্দেহ দেখা দিলে সংশ্লিষ্ট নিউজ পোর্টালের অনলাইন টিভি চ্যানেলকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন করে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে হবে।
৪.৩.৩ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত কোন বিজ্ঞাপনে বাংলাদেশের সংস্কৃতির সাথে সামঞ্জ্যপূর্ণ নয় এবং যা
শিশু- কিশোর এবং যুব সমাজের মধ্যে হতাশা বা সংস্কৃতিকে বিকৃতভাবে উপস্থাপন করা যাবেনা। কিশোর বা যুব সমাজ অর্থনৈতিক
ও সামাজিকভাবে হেয় হয় এবং শারিরীক অক্ষম বা দৈহিক বর্ণনাকে কেন্দ্র করে কোন বিজ্ঞাপন প্রচার, প্রকাশ বা সম্প্রচার করা যাবে না
এবং শ্রমের মর্যাদা থেকে বিরত রাখার কোন ধারণাকে (concept) গ্রহণ করা যাবে না;
৪.৩.৪ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপন দেশের প্রচলিত আইন, রীতি- নীতি, ঐতিহ ও সংস্কৃতির
সাথে সামঞ্জস্যপর্ণ হতে হবে। বিজ্ঞাপনে রাষ্ট্রীয় অখন্ডতা বা সংহতি বিনষ্ট হয় এমন কোন মনোভাব প্রদর্শন করা যাবে না;
৪.৩.৫ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপনে অংশগ্রহণকারী মডেলদের পোষাক- পরিচ্ছদ শালীনতাপূর্ণ
ও সামঞ্জস্যপর্ণ হতে হবে।
৪.৪ শিশু এবং নারীর অধিকার :
৪.৪.১ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপনে শিশুদের পরনিন্দা, বিবাদ, কলহের দৃশ্য পরিহার করতে
হবে ও চরিত্র গঠনের সুশিক্ষা প্রদানের দিকে বিশেষ লক্ষ্য দিতে হবে;
৪.৪.২ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপনে শিশুদের নৈতিক, মানসিক বা শারীরিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত
করতে পারে এমন বিষয়কে অন্তর্ভুক্ত করা যাবে না। শিশুদের স্বাভাবিক বিশ্বাস ও স্বভাব সুলভ সরলতার সুযোগকে প্রতারণাপর্ণ ও
চাতুর্যের সাথ কাজে লাগিয়ে কোন বাণিজিক উদ্দেশ্যে হাসিলের প্রয়াস গ্রহণযো্যে হবে না;
৪.৪.৩ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত গুড়ো দুধের বিজ্ঞাপনে ৫ (পাঁচ) বছরের কম বয়সের শিশুদের মডেল
হিসাবে ব্যবহার করা যাবে না কিংবা ছবি প্রদর্শন করা যাবে না। এছাড়া গুড়ো দুধের বিজ্ঞাপনে নিম্নলিখিত দুইটি বাক্য পৃথকভাবে
সুপার ইম্পোজ করে সুস্পষ্টাক্ষরে দেখাতে হবেঃ
ক) সম্প্রচারের ক্ষেত্রে “শিশুদের জন্য মায়ের দুধের বিকল্প নেই’’- কমপক্ষে ৫ সেকেন্ড দেখাতে হবে। প্রকাশনার ক্ষেত্রে এই বাক্যটি
গুরুত্বপর্ণভাবে উল্লেখ থাকতে হবে।
খ) সম্প্রচারের ক্ষেত্রে “এইঁ গুড়ো দুধ এক বছরের কম বয়সী শিশুদের জন্য নয়”- কমপক্ষে ৫ সেকেন্ড দেখাতে হবে। প্রকাশনার
ক্ষেত্রে এই বাক্যটি গুরুত্বপর্ণ ভাবে উল্লেখ থাকতে হবে।
৪.৪.৪ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত শিশুদের বিজ্ঞাপনে এমন কিছু প্রচার করা যাবে না যা বিভ্রান্তির সৃষ্টি
করে এবং সরাসরি ভাবে শিশুদেরকে প্রলুব্ধ করে এবং তাদের শারীরিক এবং মানসিক গঠন ব্যাহত করে;
৪.৪.৫ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত যে কান খাদ্য বা পানীয় এর বিজ্ঞাপনে উক্ত খাদ্য বা পানীয়ের পুষ্টি ও
খাদ্যগুণ এবং স্বাস্থগত প্রভাব সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ করতে হবে এবং সুপার ইম্পোজ করে স্পষ্টাক্ষরে দেখাতে হবে; প্রকাশনার ক্ষেত্রে
এইসব বিষয় গুরুত্বপর্ণভাবে উল্লেখ থাকতে হবে।
৪.৪.৬ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপনে শিশুদের দ্বারা বিপদজনক কোন দ্রব্য যেমন- বিস্ফোরক,
দিয়াশলাই, প্রেট্রোল বা দগ্ধকারক দ্রব্য, যন্ত্র বা বদক্ষতিক যন্ত্রপাতি, ঔষধপত্র ইতাদি ল্টবহারের দৃশ দেখানো যাবে না। যে কোন
পরিস্থিতিতে বিজ্ঞাপনচিত্রে শিশুদের অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে তাদের নিরাপত্তার বিষয়টি গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করতে হবে। ঝুঁকিপর্ণ
দৃ্শ্য দেখানো যাবে না;
৪.৪.৭ অনলাইন গণমাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রচার, প্রকাশ ও সম্প্রচারের ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত চর্চা এবং যৌক্তিক বিরতির
সময়সীমা অনুসরণ করতে হবে। এই বিষয়ে কোন অভিযোগ আসলে অনলাইন গণ মাধ্যম কমিশন প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা দিবে;
৪.৪.৮ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপনচিত্রে ভয়- ভীতি সৃষ্টিকারী কোন কিছু প্রদর্শন করা যাবে না।
ফাঁসি, শ্বাসরোধ, আত্মহত্যা, অঙ্গবিচ্ছেদ ইত্যাদি বীভৎস দৃশ্য দেখানো যাবে না। শিশু, কিশোর, বৃদ্ধ বা অসুস্থ ব্যক্তির স্নায়ুর উপর
চাপ সৃষ্টি করতে পারে এরূপ প্রচার, প্রকাশ বা সম্প্রচার যাবে না;
৪.৪.৯ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপনে ধর্ষণ, ব্যভিচার, অশ্লীল ছবি বা চলচ্চিত্র দেখানো, নারী
নির্যাতন, নারীর প্রতি সহিংসতা বা তাঁদের প্রতি শারীরিক, সামাজিক এবং অর্থনৈতিক নেতিবাচক মনোভাব সৃষ্টি করে, কিশোরী ও
মহিলাদের উত্যক্তকরণ এবং তাঁদের প্রতি অশোভন অঙ্গভঙ্গীতে উৎসাহ দেয় এই ধরনের বিজ্ঞাপন বা বিজ্ঞাপন চিত্র প্রচার, প্রকাশ বা
সম্প্রচার করা যাবে না।
৪.৫ বিবিধ
৪.৫.১ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপনে সশস্ত্র বাহিনী অথবা দেশের আইন- শৃঙ্খলা রক্ষায়
নিয়োজিত অন কোন বাহিনীর প্রতি অশোভন কটাক্ষ, বিদ্রুপ বা অবমাননা করা যাবে না। বাণিজিক উদ্দেশে নির্মিত কোন একটি
পণ্যের বিজ্ঞাপনে মডেল হিসাবে প্রতিরক্ষা বাহিনী, পুলিশ বা অন্য কোন আইন- শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদসদের প্রদর্শন করা
যাবে না। তবে, জনস্বার্থে জনসচেতনতা ও সমাজ সংস্কারমলক বিজ্ঞাপনে প্রয়োজনবোধে এসব বাহিনীর লোকদের বিজ্ঞাপনচিত্রে
অনুমতিক্রমে অন্তর্ভূক্ত করা যেতে পারে। আইন- শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নিজস্ব কোন ঘোষণা বা নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি বিজ্ঞাপন হিসাবে
প্রচার, প্রকাশ বা সম্প্রচার করা যেতে পারে;
৪.৫.২ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপনে প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে নীতিবোধের উন্নয়ন, সামাজিক
কুসংস্কার থেকে মুক্তি এবং সমাজ বিরোধী কার্যকলাপ রোধ করার সুস্পষ্ট দিক নির্দেশনা থাকতে হবে;
৪.৫.৩ অনলাইন গণ মাধ্যমকে প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে নিজ দায়িত্বে বিজ্ঞাপন সংক্রান্ত ছাড়পত্র গ্রহণ করতে হবে এবং এক্ষেত্রে বিজ্ঞাপন
নীতিমালা সঠিকভাবে অনুসরণ না করা হলে সরকার সংশ্লিষ্ট গণ মাধ্যমের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে;
৪.৫.৪ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপণানিক শব্দাবলী, পরিসংখ্যান, উদ্বৃতি ইত্যাদি বিজ্ঞাপনে ব্যবহারের
ক্ষেত্রে দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে হবে, যেন সাধারণ দর্শকদের নিকট বিভ্রান্তি সৃষ্টি না হয়। পরবর্তীতে সৃষ্ট কোন জটিলতার জন্য
বিজ্ঞাপনদাতাকে দায়- দায়িত্ব বহন করতে হবে;
৪.৫.৫ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত, প্রকাশিত বা সম্প্রচারিত বিজ্ঞাপন শোভনীয়, সুন্দর, সুরুচিপর্ণ ও পরিমার্জিত হতে হবে;
৪.৫.৬ সানিটারী নাপকিন, কনডম প্রভৃতিসহ জন্ম নিয়ন্ত্রণ সামগ্রীর বিজ্ঞাপন প্রচারকালে বিজ্ঞাপনের ভাষা, দৃশ ও সংলাপ মার্জিত
ও শোভনীয় হতে হবে;
৪.৫.৭ নিম্নবর্ণিত পণ্য ও সেবার বিজ্ঞাপন প্রচারযোগ বিবেচিত হবে নাঃ
১. বাংলাদেশ ব্যাংকের ছাড়পত্র বিহীন/ অননুমোদিত অর্থলগ্নীকারী প্রতিষ্ঠান;
২. পত্র মিতালী ক্লাব, নাইট ক্লাব, বার, সামাজিকভাবে স্বীকৃত নয় এমন ক্লাব বা সমিতি;
৩. ভাগ্য গণনাকারী ও এতদসংক্রান্ত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান;
৪. লাইসেন্স বিহীন ব্যবসায় কর্মকান্ড এবং কর্মসংস্থান প্রতিষ্ঠান/ সার্ভিস
৫. বাজি ধরা, জুয়া খেলা বা এতদসংক্রান্ত সংস্থা/ কোম্পানী/ ব্যক্তি;
৬. সিগারেট, বিড়ি, চুরুট ইত্যাদি তামাকজাত পণ্য;
৭. মদ, গাঁজা, চরস, হেরোইন,ফেন্সিডিল ইত্যাদি মাদক/ নেশা জাতীয় পণ্য;
৮. এলকোহল মিশ্রিত

ONN TV
payoneer
নিউজ আর্কাইভ
সর্বাধিক পঠিত
সখিপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ২ ব্যাপী ক্রীড়া ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান
ক্রীড়া ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান

সাতক্ষীরা  প্রতিনিধি: সখিপুর ইউনিয়নের সখিপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ২ দিনব্যাপী ক্রীড়া, কুইজ, রচনা প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বে-সরকারি প্রতিষ্ঠা

জেলা পরিষদের সদস্য প্রাথী শাপলার গনসংযোগ
জেলা পরিষদের সদস্য প্রাথী শাপলার গনসংযোগ

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও ইউপি চেয়ারম্যানদের সাথে গনসংযোগ করেছেন জেলা পরিষদের সদস্য প্রার্থী সোনিয়া পারভীন শাপলা। সোমবার

দেবহাটা রিপোর্টাস ক্লাবের নবগত নির্বাহী অফিসারের সাথে ফুলের শুভেচ্ছা ও মতবিনিময়
 শুভেচ্ছা ও মতবিনিময়

দেবহাটা প্রতিনিধি: দেবহাটা উপজেলা নবগত নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে ফুলের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন দেবহাটা রিপোর্টাস ক্লাবের নের্তৃবৃন্দরা। সোমবার দুপুরে নির

দেবহাটায় ছাত্রলীগের ৪দলীয় ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট
৪দলীয় ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট

মীর খায়রুল আলম, সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: দেবহাটায় ছাত্রলীগের উদ্যেগে ৪দলীয় ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বিকালে উপজেলার গোপাখালি মাঠে দে

দেবহাটায় ইএনও’র বিভিন্ন প্রকল্প পরিদর্শন
দেবহাটায় ইএনও’র বিভিন্ন প্রকল্প পরিদর্শন

মীর খায়রুল আলম:: দেবহাটা উপজেলাকে মডেল করতে ছুটির দিনে উপজেলার বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ পরিদর্শন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাফিজ আল-আসাদ। শুক্রবা

শিরোনাম